সভাপতির বানী

বর্তমান যুগ ডিজিটাল যুগ, ডিজিটাল যুগের সাথে তাল মিলিয়ে লেতু মন্ডল উচ্চ বিদ্যালয় অগ্রসর হওয়ার চেষ্টা করছে, আমি তাদের এ প্রচেষ্টাকে স্বাগত জানাচ্ছি। ১৯৭০ সালে ময়মনসিংহ সদর উপজেলার রাজগঞ্জ গ্রামে গড়ে উঠা লেতু মন্ডল উচ্চ বিদ্যালয় বর্তমানে এ অঞ্চলের মানুষের শিক্ষা, সাংস্কৃতির অন্যতম কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হয়েছে। একটি অজপাড়াগা আজ শিক্ষায় উদ্ভাসিত। গ্রামের ছেলে মেয়েরা মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর স্বপ্নের ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে ইন্টারনেট ব্যাবহার করে তথ্য সংগ্রহ করতে পারবে এজন্য বর্তমান সরকারকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

রেক্টর এর বানী

১৯৭০ সালে ময়মনসিংহ জেলার সদর উপজেলার রাজগঞ্জ এলাকার কয়েকজন বিদ্যানুরাগীদের সহযোগীতায় একটি স্কুল তৈরী করেছিলাম, যা তৈরী করতে জমি দান ও সহযোগীতা করেছিল আমার বড় দাদা লেতু মন্ডলের বংশধরেরা। যার ফলে স্কুলটি উক্ত লেতু মন্ডল এর নামেই তৈরী হয়েছিল। সেই সময়ের ১০ জন ছাত্র/ছাত্রী আজ হাজার হয়েছে, বাঁশের বেড়া ছনের ছাউনি দিয়ে তৈরী ঘরও আজ পরির্বতন হয়েছে। তখন আমরা যা চিন্তা করতে পারিনি আজ ইন্টারনেটের কল্যাণে তা সম্ভব হচ্ছে। এখন বাড়িতে বসেই ছাত্র/ছাত্রীরা স্কুলের সমস্ত তথ্য পাবে ওয়েবসাইটের মাধ্যমে। আমি বাংলাদেশ সরকারের ভিশন ২১ কে স্বাগত জানাচ্ছি এবং সবার সহযোগীতা চাচ্ছি যাতে সরকারের দেয়া ডিজিটাল প্রতিশ্রুতি মোতাবেক লেতু মন্ডলের সমস্ত কার্যক্রম ডিজিটাল করতে পারি। আমন্ত্রণ জানাচ্ছি লেতু মন্ডল উচ্চ বিদ্যালয়ের ওয়েব সাইট ব্রাউজ করে তথ্য সংগ্রহের জন্য।

প্রধান শিক্ষিকার বানী

ময়মনসিংহ সদর উপজেলার, রাজগন্জ নামের ছোট্র একটি গ্রামে লেতু মন্ডল উচ্চ বিদ্যালয় অবস্থিত। এই্ অঞ্চলের বেশীরভাগ মানুষ কৃষিজীবি এবং দরিদ্র। এই গ্রামের কয়েকজন উদ্যোমী তরুণের প্রচেষ্ঠায় এলাকার লোকজনের সহায়তায় ১৯৭০ সালে  লেতু মন্ডল উচ্চ বিদ্যালয়টি  তৈরী হয়েছিল ছোট্র পরিসরে । আজ তা অনেক বড় হয়েছে, অভিজ্ঞ শিক্ষকমন্ডলীর তত্বাবধানে সেখান থেকে শত শত ছাত্র/ছাত্রী বের হয়ে দেশ বিদেশে অবস্থান তৈরী করে নিচ্ছে। একুশ শতকের ডিজিটাল হাওয়া এই স্কুলেও প্রবেশ করেছে। ২০১২ সাল থেকে বিদ্যালয়টিতে নিয়মিত মাল্টিমিডিয়ার সাহায্যে ডিজিটাল কনটেন্টের মাধ্যমে শ্রেনিতে পাঠদান করা হয়। সরকারের করা ডিজিটাল উদ্যেগকে স্বাগত জানিয়ে এখন থেকে শুরু করছি অনলাইনের মাধ্যমে সেবা প্রদান, আশা করি আমরা লক্ষ্যে পৌছতে পারব। সবাইকে লেতু মন্ডল উচ্চ বিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট ব্রাউজ করে তথ্য সংগ্রহের আমন্ত্রণ জানাচ্ছি এবং সার্বিক সহযোগিতা কামনা করছি।